পাল্টে যাচ্ছে রাজশাহী সিটি করপোরেশন এলাকার সড়ক উন্নয়নের চিত্র

0

রাজশাহী সিটি করপোরেশন (রাসিক) এলাকার সড়ক উন্নয়নে পাল্টে যাচ্ছে যোগাযোগের চিত্র। একযোগে নগরীর চারটি সড়ক চার লেনে উন্নীতকরণে কাজ করছে সিটি করপোরেশন। এছাড়া সড়ক উন্নয়নে আরও কিছু প্রকল্পের কাজ চলছে। এসব কাজ শেষ হলে পাল্টে যাবে নগরীর সড়ক যোগাযোগের চিত্রই। রাসিক সূত্রে জানা গেছে, নগরীর রাজশাহী-নওগাঁ প্রধান সড়ক হতে মোহনপুর-রাজশাহী-নাটোর পর্যন্ত পূর্ব-পশ্চিম সংযোগ সড়ক নির্মাণ প্রকল্পের কাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে। ১৮৯ কোটি ৩৪ লাখ ৫৯ হাজার টাকা ব্যয়ে প্রকল্পটির আওতায় রাজশাহী-নওগাঁ মহাসড়কের আলিফ লাম মীম ভাটার মোড় হতে ছোট বনগ্রাম, মেহেরচন্ডী, বুধপাড়া, মোহনপুর হয়ে চৌদ্দপাই রাজশাহী-নাটোর সড়ক পর্যন্ত পূর্ব-পশ্চিম সংযোগ সড়ক নির্মাণ কাজ প্রায় শেষ হয়েছে। প্রকল্পটির আওতায় নগরীর দুটি মহাসড়কের পূর্ব-পশ্চিমমুখী ৬.৭৯৩ কিলোমিটার চার লেন সংযোগ সড়ক নির্মাণ করা হয়েছে। এছাড়াও সড়কের দুই পাশে ফুটপাথ, রেলওয়ে ক্রসিংয়ে একটি ফ্লাইওভার, একটি ব্রিজ, আটটি কালভার্ট, সড়ক বিভাজন ও ট্রাফিক কাঠামো ইত্যাদি কাজ সম্পন্ন হয়েছে। প্রকল্পের আওতায় রাজশাহীর প্রথম ফ্লাইওভার নির্মাণ করছে রাজশাহী সিটি করপোরেশন। ২০২ দশমিক ৫০ মিটারের ফ্লাইওভার এবং ১২০ মিটার দৈর্ঘ্যরে র‌্যাম নির্মাণে ব্যয় ধরা হয়েছে ২৯ কোটি ২৮ লাখ ৭৭ হাজার ৫৩২ টাকা। স্বল্প সময়ের মধ্যে নির্মিত সড়কটি আনুষ্ঠানিকভাবে চলাচলের জন্য উন্মুক্ত করা হবে। নির্মাণাধীন সংযোগ সড়কে চলাচল শুরু হলে নগরীর ক্রমবর্ধমান যানজট অনেকটাই কমবে। রাজশাহীর আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ সড়ক আলুপট্টি মোড় থেকে তালাইমারী। দীর্ঘদিন ধরে এই সড়কের কাজ বন্ধ ছিল। দ্বিতীয় মেয়াদে দায়িত্ব    গ্রহণের পর ২০২০ সালের ২৫ ফেব্রুয়ারি সড়কটির কাজের উদ্বোধন করেন মেয়র খায়রুজ্জামান লিটন। ১৬৪ কোটি ১৯ লাখ ২৯ হাজার টাকা ব্যয়ে প্রকল্পটির আওতায় বর্তমান সড়কটি প্রশস্ত করে চার লেনে উন্নীতকরণ কাজ চলমান রয়েছে। ভূমি অধিগ্রহণের পর শুরু হয়েছে সড়কের নির্মাণ কাজ। প্রকল্পটির আওতায় সড়কের দুই পাশে ২.২০ মিটার চওড়া ফুটপাথ নির্মাণ ও আধুনিক সড়ক বাতি স্থাপন করা হবে। ইতিমধ্যে সড়কটির দক্ষিণ পাশে দৃষ্টিনন্দন ফুটপাথ নির্মাণ কাজ সম্পন্ন হয়েছে। সড়ক প্রশস্তকরণ ও উন্নয়ন কাজটি আগামী ডিসেম্বরের মধ্যেই সম্পন্ন করতে চায় সিটি করপোরেশন। নগরীর সাহেববাজার, মনিচত্বর থেকে ফায়ার সার্ভিস মোড় পর্যন্ত সড়কটি সরু হওয়ায় তীব্র যানজট দেখা যায়। নগরবাসীকে যানজট থেকে মুক্তি দিতে এই সড়কটিও চার লেনে উন্নীত করছে সিটি করপোরেশন। রাজশাহী নগরীর ৩০টি ওয়ার্ডে ‘ক্ষতিগ্রস্ত সড়ক ও নর্দমার উন্নয়ন’ শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় মনি চত্বর থেকে সদর হাসপাতাল পর্যন্ত সড়কের পাশে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের সীমানা প্রাচীর, ড্রেন ও ফুটপাথ নির্মাণ কাজ চলমান আছে। প্রকল্পটির ব্যয় ধরা হয়েছে ২ কোটি ৮১ লাখ ১০ হাজার ৮৪৮ টাকা। বতর্মানে প্রকল্পটির আওতায় বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের সীমানা প্রাচীর ও ড্রেন নির্মাণ কাজ চলছে। সীমানা প্রচীর ও ড্রেন নির্মাণ শেষে সড়ক ও ফুটপাথ নির্মাণ করা হবে। প্রকল্পের কাজ আগামী ২০২১ সালের মার্চে শেষ হওয়ার কথা আছে। রাজশাহীর আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ সড়ক বিলসিমলা রেলক্রসিং হতে কাশিয়াডাঙ্গা মোড় পর্যন্ত সড়ক চার লেনে উন্নীত হচ্ছে। ২০১৯ সালের ৩ সেপ্টেম্বর সড়কটির কাজের উদ্বোধন করা ২৬ কোটি ৭৫ লাখ টাকার প্রকল্পটি দ্রুতগতিতেই এগিয়ে চলছে। এর আওতায় ৩০ ফুট প্রশস্ত সড়কটি ৮০ ফুটে উন্নীত করা হবে। রাখা হয়েছে ড্রেন, ফুটপাথ, ডিভাইডারসহ সাইকেল লেন। ৮০ ফুট সড়কের মাঝে ৪ ফুট চওড়া ডিভাইডার, উভয় পাশে ১০ ফুট চওড়া ফুটপাথ এবং রাস্তার দক্ষিণ পাশে ৭ ফুট ৮ ইঞ্চি চওড়া বাইসাইকেল লেন রাখা হয়েছে। ড্রেন, ফুটপাথ, বাইসাইকেল লেন নির্মাণ কাজ সম্পন্ন হয়েছে। সড়কের কাজও দ্রুতগতিতে এগিয়ে চলেছে। সঙ্গে চলছে আইল্যান্ডের নির্মাণ কাজ। এই চারটি প্রকল্প ছাড়াও নগরীর উপশহর মোড় হতে সোনাদীঘি মোড় এবং মালোপাড়া মোড় থেকে সাগরপাড়া মোড় পর্যন্ত সড়ক প্রশস্তকরণ ও উন্নয়ন প্রকল্পের কাজ চলমান আছে। ১২৬ কোটি ৩৯ লাখ ৯৯ হাজার টাকা ব্যয় সাপেক্ষে প্রকল্পটির আওতায় নগরীর গুরুত্বপূর্ণ উপশহর মোড় থেকে দড়িখরবোনা, কাদিরগঞ্জ, মহিলা কলেজ, মালোপাড়া পুলিশ ফাঁড়ি হয়ে সোনাদীঘি মোড় এবং মালোপাড়া মোড় হতে রানীবাজার মোড় হয়ে সাগরপাড়া বটতলা মোড় পর্যন্ত বর্তমান সড়কটি প্রশস্তকরণ ও উন্নয়ন কাজ করা হচ্ছে। ইতিমধ্যে উপশহর মোড় থেকে দড়িখরবোনা ও রানীবাজার থেকে সাগরপাড়া মোড় পর্যন্ত সড়কটির প্রশস্তকরণ কাজ সম্পন্ন হয়েছে।

Share.

About Author

Leave A Reply

hioidind