এক বছরে সঞ্চয়পত্রের বিক্রি কমেছে ৩৫ হাজার কোটি টাকা

0

এক বছরের ব্যবধানে সঞ্চয়পত্রের বিক্রি কমেছে ৩৫ হাজার ৫১১ কোটি টাকা। ২০১৮-১৯ অর্থবছরে নিট সঞ্চয়পত্র বিক্রি হয়েছিল ৪৯ হাজার ৯৩৯ কোটি টাকা। আর বিদায়ী ২০১৯-২০ অর্থবছরে বিক্রি হয়েছে ১৪ হাজার ৪২৮ কোটি টাকা। এক বছরের তুলনায় আরেক বছরে সঞ্চয়পত্র বিক্রির এত বড় ব্যবধান গত পাঁচ বছরেও দেখা যায়নি। জাতীয় সঞ্চয় অধিদপ্তর সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

একদিকে করোনার প্রভাব, অন্যদিকে অনলাইন পদ্ধতি চালু—দুই কারণেই বিদায়ী অর্থবছরে সঞ্চয়পত্রে মানুষ খুব বেশি বিনিয়োগ করতে পারেনি বলে সঞ্চয় অধিদপ্তরের কর্মচারীরা বলছেন। আবার কয়েক মাস সরকারি অফিস ও ব্যাংকিং কার্যক্রম স্বাভাবিক না থাকার কারণেও বিক্রি কমে গেছে। নতুন বিনিয়োগ দূরের কথা অনেকে মেয়াদপূর্তির আগে বরং সঞ্চয়পত্র ভেঙে ফেলেছেন বেশি।

সঞ্চয় অধিদপ্তরের তথ্য বিশ্লেষণে দেখা যায়, ২০১৩-১৪ অর্থবছর থেকে সঞ্চয়পত্রের প্রতি মানুষের আগ্রহ বাড়তে থাকে। এ আগ্রহের অন্যতম কারণ ‘উচ্চ সুদ বা মুনাফা’। তবে আ হ ম মুস্তফা কামাল অর্থমন্ত্রী হওয়ার পর ২০১৯-২০ অর্থবছরের বাজেটে প্রথম সঞ্চয়পত্রের বিক্রির লাগাম টেনে ধরে সরকার। ২০১৯ সালের ১ জুলাই থেকে এক লাখ টাকার বেশি সঞ্চয়পত্র কেনার জন্য কর শনাক্তকরণ নম্বর (টিআইএন) থাকা, অনলাইনে সঞ্চয়পত্র কেনা, মুনাফার ওপর কর আরোপ, এক নামে বেশি না কেনাসহ বিভিন্ন শর্ত আরোপ করায় হয়। এতে অপ্রদর্শিত আয়ে সঞ্চয়পত্র কেনার সুযোগ কমে যায়।

Share.

About Author

Leave A Reply

hioidind